Home / চলতি খবর / ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়:  যাত্রীদের ভোগান্তি চরমে

ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়:  যাত্রীদের ভোগান্তি চরমে

আসাদুজ্জামান বাবুল : ইট বালি পাথর আর কংক্রিটের তৈরি শহর ছেড়ে নাড়ির টানে গ্রামের বাড়ি ফিরছেন রাজধানীবাসী। যাত্রা পথে শত ভোগান্তি নিত্য সাথী জেনেও পিছপা হয়না ঈদে ঘরমুখো যাত্রীরা। এবার নতুন যোগ হয়েছে সীমাহীন ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়। ফলে ব্যাপক বিড়ম্বনায় পড়েছেন যাত্রীরা। যাত্রীদের এই বিড়ম্বনা লাঘবে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এতে করে যেকোনো যাত্রী ইচ্ছে করলেই বিলম্ব হওয়া ট্রেনের টিকিটগুলো জমা দিয়ে পুরো টাকা ফেরত নিতে পারবেন।
শুক্রবার (৯জুলাই)বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব প্রান্তে ঢাকা থেকে খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়। ফলে বঙ্গবন্ধু সেতুতে ট্রেন চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ঘরে ফেরা মানুষের ঈদযাত্রায় চরম ভোগান্তি দেখা দিয়েছে। শুক্রবার বেলা পৌনে ২টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। সাড়ে তিন ঘণ্টা পর উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাথে রেল যোগাযোগ সাভাবিক হয়। সেই প্রভাব ঐ রুটে চলাচলকারী সকল ট্রেনেই পড়েছে।ফলে ট্রেন সিডিউল বিপযয় দেখা দেয়।
যার ফলে ঈদযাত্রার চতুর্থ দিনে এসে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে পশ্চিমাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ ট্রেনগুলো দেরিতে ছাড়বে। এসব ট্রেনের কোনোটি ৬, ৮, ১০ ও ১২ ঘণ্টা বিলম্বে ছেড়ে যাবে। যাত্রীদের এই বিড়ম্বনা লাঘবে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এতে করে যেকোনো যাত্রী ইচ্ছে করলেই বিলম্ব হওয়া ট্রেনের টিকিটগুলো জমা দিয়ে পুরো টাকা ফেরত নিতে পারবেন।
শনিবার কমলাপুর রেলস্টেশনে যাত্রীদের উদ্দেশ্যে এ তথ্য মাইকে প্রচার করছে স্টেশন কর্তৃপক্ষ। সেখানে বলা হয়, আজকের বিলম্ব হওয়া ট্রেনগুলোর যাত্রীরা স্টেশনে টিকিট জমা দিয়ে পুরো টাকা ফেরত নিতে পারবেন। স্টেশনের ১ থেকে ৬ নম্বর কাউন্টারে এই টিকিট ফেরত নেওয়া হচ্ছে।
শনিবার কমলাপুর রেলস্টেশনে রাখা ডিসপ্লেতে দেওয়া ট্রেনের সময়সীমা অনুযায়ী, রাজশাহীগামী ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৬ টায় ছাড়ার কথা থাকলেও ট্রেনটি ৮ ঘণ্টা ৩০ মিনিট দেরিতে আনুমানিক বেলা ২টা ৩০ মিনিটে ছেড়ে যায়। খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ২০ মিনিটের ট্রেনটি আনুমানিক দেড়টায় ছেড়ে যায়। চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৮টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও এটি ছাড়বে বিকেল সাড়ে ৪টায়। রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৯ টায় ছাড়ার কথা থাকলেও ছাড়বে রাত ৯টায়। এদিকে পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ১০টায় ছাড়ার কথা থাকলেও এটি দুপুর ১২টায় কমলাপুর ছেড়ে যায়। এদিকে ১ থেকে ৬ নম্বর কাউন্টারে গিয়ে যাত্রীদের টিকিট ফেরত দেওয়ার তেমন একটা ভিড় দেখা যায়নি।
কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল ইসলাম বলেন,গতকাল টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব প্রান্তে ঢাকা থেকে খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার কারণে দীর্ঘ সময় ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। ফলে এই প্রভাব ঐ রুট ব্যবহারকারী সব ট্রেনের ওপর পড়েছে। যে কারণে ট্রেনগুলোর শিডিউল ঠিক সম্ভব হয়নি।

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*