Home / জেলার খবর / হুমকির মূখে লক্ষীপুর নলজুরী গ্রামের কয়েকটি স্কুল ফসলী জমি চলাচলের সড়ক 

হুমকির মূখে লক্ষীপুর নলজুরী গ্রামের কয়েকটি স্কুল ফসলী জমি চলাচলের সড়ক 

সালমান এফ রহমান ,জৈন্তাপুর (সিলেট) : বর্ষার মৌসমে নদী ভাঙ্গনের কবলে জৈন্তাপুরের কয়েকটি গ্রামের মানুষ।হুমকির মূখে লক্ষীপুর,নলজুরী গ্রামের কয়েকটি স্কুল,ফসলী জমি,চলাচলের সড়ক। এরই মধ্যে অনেকে হারিয়েছে ঘরবাড়ি।ভাঙ্গন ঠেকাতে সকল প্রকার ইঞ্জিন চালিত নৌকা বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা।এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছে নৌকা মালিক সমিতির সদস্যরা তাদের দাবি কোন নির্দেশনা ছাড়াই দীর্ঘ দিনের এই নদী পথ বন্ধ করা হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে নদীতে অপরিকল্পিত ভাবে ইঞ্জিন নৌকা চলাচলের কারণে এই নদী ভাঙ্গনের সৃষ্টি হচ্ছে। এই ভাঙ্গন যেন নিত্যদিনের খেলা।এর সাথে বর্ষা যোগ করে নদী ভাঙ্গনের নতুন মাত্রা। এটি সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার লক্ষীপুর,নলজুরী,আমবাড়ী গ্রামের রাংপানি নদীর নাপিত খালের দৃশ্য।

ইতপূর্বে ভাঙ্গন কবলে বিলিন হয়ে গেছে কয়েকটি বাড়ী মসজিদ ,মাদ্রাসাসহ নানা স্থাপনা। ভাঙ্গন কবলে প্রতিনিয়ত সহয়-সম্বল হারাচ্ছে অনেক পরিবার।স্থানীয়দের অভিযোগ অপরিকল্পিত ভাবে ইঞ্জিন নৌকা চলাচলের কারণে রাংপানি নদীর নাপিত খালের ভাঙ্গন ভয়াভহ আকার ধারণ করছে। এতে হুমকির মূখে রয়েছে এলাকার শতাধিক পরিবার। ভাঙ্গন কবলে ক্ষতি গ্রস্থদের আসংখ্যা স্থায়ীভাবে ভাঙ্গন ঠেকানো না গেলে বড় ধরনের বির্পযের মুখে পড়বে তারা।

লক্ষীপুরের এক পারে মহাসড়ক আরেক পারে ডুলটির পাড় গ্রাম মাঝ খানের দুরত্বটা অনেক বেশী হলেও নদীর এই পথটকু পারা-পারের এক মাত্র মাধ্যম ইঞ্জিন নৌকা। তবে অপরিকল্পিত ভাবে ইঞ্জিন চলাচলের কারণে নাপিত খালে নদী ভাঙ্গন বেড়েছে। ফলে ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় নৌকা চলাচল বন্ধ করে দেয় স্থানীয় এলাকাবাসী। এতে যাতায়াতের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নিম্ম এলাকার স্কুল-কলেজ পুড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীসহ কয়েক’শ মানুষকে। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানায় হাওড় এলাকার মানুষ। তবে নদী ভাঙ্গনরোধে কার্যকারী পদেক্ষেপ নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন নদীর তীরবর্তী এলাকার মানুষ। অপর দিকে নদীপথে নৌকা চলাচলের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাছে একটি স্মরক লিপি দিয়েছে হাওড় এলাকার মানুষ।

 

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*