Home / জেলার খবর / কাটাবিল ঘাটে পারাপারে নৌকাই ভরসা : অর্ধলক্ষ লোক ভোগান্তির শিকার

কাটাবিল ঘাটে পারাপারে নৌকাই ভরসা : অর্ধলক্ষ লোক ভোগান্তির শিকার

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার : কমলগঞ্জে সীমান্তবর্তী আদমপুর ইউনিয়নের কাটাবিল ঘাটে ধলাই নদীর উপর সেতু না থাকায় দুই পাশের ১৫/১৬টি গ্রামের প্রায় অর্ধলক্ষ লোককে ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। সেতু না থাকায় শিক্ষার্থী, চাকুরীজীবীসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষেরা নৌকা দিয়ে পারাপার হতে হয়।

জানা গেছে-ধলাই নদীর উভয় পাশে কাটাবিল, হকতিয়ারখোলা, উত্তরভাগ, মধ্যভাগ, বনগাঁও, জালালপুর, পশ্চিম জালালপুর, নোয়াগাঁও, মদনপুর, মাধবপুর, শ্রীগোবিন্দপুর, মদনমোহনপুর, কেওয়ালিঘাট, পাত্রখোলা খাসিয়া পুঞ্জিসহ ১৫/১৬টি গ্রামের লোকজন মালামাল নিয়ে আসা করতে হয়। কাটাবিল ঘাটে জরুরী ভিত্তিতে ধলাই নদীর উপর কাটাবিল এলাকায় একটি সেতু নির্মাণের জন্য এলাকাবাসী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশুদৃষ্টি কামনা করছেন। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়- আদমপুর ও মাধবপুর ইউনিয়নের যোগাযোগ রক্ষাকারী কাটাবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অদূরে কাটাবিল গ্রামে ধলাই নদীর উপর সেতু না থাকায় মানুষের ভোগান্তি। খর¯্রােতা ধলাই নদীতে মানুষ পারাপারের জন্য বাঁশের সাঁকোও নেই। নদী পারাপারের একমাত্র ভরসা নৌকা দিয়েই মানুষ যাতায়াত করতে হয়।

আলাপকালে কাটাবিল গ্রামের কৃষক আমির আলী বলেন, নির্বাচনের আগে জনপ্রতিনিধিরা ব্রিজ নির্মাণের আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। কাটাবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল খালেক, মাধবপুর বাজারের সমাজকর্মী আসহাবুর ইসলাম শাওন বলেন- কাটাবিল গ্রামে ধলাই নদীতে একটি সেতু না থাকায় নদীর দুইপাড়ের ১৫টি গ্রামের হাজার হাজার লোকজন অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়েছে। অচিরেই এখানে সেতু নির্মাণ করার জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেন। স্কুল শিক্ষিকা রুমা রানী সিনহা বলেন ‘ব্রিজ না থাকা নৌকা দিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করতে হয়। মালামাল নিয়ে যেতে ৮/১০ কিলোমিটার ঘুরে যাওয়া-আসা করতে হয়।

 

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*