Home / চলতি খবর / জি কে শামীমকে ৭ বডিগার্ডসহ গুলশান থানায় হস্তান্তর

জি কে শামীমকে ৭ বডিগার্ডসহ গুলশান থানায় হস্তান্তর

আসাদুজ্জামান বাবুল : টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগে আটক যুবলীগের সমবায় বিষয়ক সম্পাদক জি কে শামীম ও তার ৭ বডিগার্ড শহিদুল, কামাল, জাহিদুল, সায়েম, দেলোয়ার, মুরাদ ও আমিনুলকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করেছে র‌্যাব। শনিবার (২১সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে তাদেরকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করেন র্যা পিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)
সংশ্লিষ্ট গুলশান থানার ডিউটি অফিসার এসআই মো: সাদেক জানান, তাদের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্র ও মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে তিনটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।
উল্লেখ্য, শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) নিকেতনের ১১৩ নম্বর বাসা থেকে যুবলীগের এই নেতাকে আটক করা হয়। এরপর নিকেতনে তার জি কে বিল্ডার্স অফিসে (১৪৪ নম্বরে) অভিযানে তার অফিস থেকে নগদ এক কোটি ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয় এবং ১৬৫ কোটি টাকার ওপরে এফডিআর (স্থায়ী আমানত) পাওয়া যায়। উদ্ধারকৃত এফডিআর এর মধ্যে তার নিজ নামে ২৫ কোটি আর বাঁকি ১৪০ কোটি টাকার এফডিআর তার মায়ের নামে। এছাড়াও তার অফিস থেকে বিপুল পরিমান মার্কিন ডলার, বিট্রিশ পাউন্ডসহ মাদক, ৭টি শর্টগান ও একটি বিদেশী পিস্তল তাদের হেফাজত থেকে উদ্ধার করা হয়।
টেন্ডারবাজির অভিযোগ থাকা রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবো, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবে পরিচিত যুবলীগ সমবায় বিষয়ক সম্পাদক নেতা জি কে শামীমকে ধরতে শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে সাদা পোশাকে অভিযান শুরু করে র‌্যাব। বিকেল সাড়ে ৪টায় অভিযান শেষে শামীমসহ আটজনকে আটক করার কথা জানায় র‌্যাব ।
র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, জি কে শামীমকে টেন্ডারবাজি ও চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগে আটক করা হয়েছে। এই বিষয়ে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, যদি তিনি নির্দোষ হন, তাহলে কোর্টে এগুলোর ব্যাখ্যা দেবেন। আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিয়েছি, কোর্টে তার বক্তব্য সঠিক হলে তিনি ছাড়া পাবেন।

সারওয়ার আলম বলেন,তার বিরুদ্ধে বৈধ অস্ত্র অবৈধ কাজে ব্যবহার করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৈধ অস্ত্র ব্যবহারের কিছু শর্তাবলি থাকে। সেসব শর্তভঙ্গ করেছেন তিনি। তার বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ ছিল ও তার বডিগার্ডদের বিরুদ্ধে অস্ত্র প্রদর্শন করে চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজির অভিযোগ রয়েছে। একই সঙ্গে মাদক পাওয়া গেছে, যেটি কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।
তিনি আরো বলেন, আমরা তথ্য পেয়েছি তার নগদ টাকা অবৈধ উৎস থেকে এসেছে। কিন্তু এটা সত্য-মিথ্যা প্রমাণ করার দায়িত্ব তার। এটা তিনি কোর্টের সামনে প্রমাণ করবেন।

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*