Home / চলতি খবর / টঙ্গীতে সড়কের বেহাল দশা :যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ চরমে

টঙ্গীতে সড়কের বেহাল দশা :যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ চরমে

আব্দুস সবুর খান, টঙ্গী : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৫৫ নং ওয়ার্ডে মাছিমপুর এলাকায় থানা রোড নামে একটি সড়ক। এটি একটি গুরুত্বপুর্ন সড়ক। সড়কে কার্পেটিং, ইট, বালু ও খোয়া উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তে পরিণত হয়েছে। সড়কের অর্ধেকজুড়ে সৃষ্টি হয়েছে খানাখন্দ। বেহাল এই সড়কে যানবাহন অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। যাত্রী ও সাধারণ মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিন দেখা যায়, টঙ্গী পুর্ব থানা গেট থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে গর্তগুলো তলিয়ে যায়। বুঝার উপায় নেই এটি সড়ক না খাল। এ সড়ক দিয়েই যাতায়াত করে ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানসহ ভারী যানবাহনগুলো। এমন গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিরও বেহাল দশা। সড়কে এত বেশি গর্ত যে যানবাহন একটি পাশ কাটাতে গেলে আরেকটিতে পড়তে হচ্ছে। সম্পূর্ণ ঝুঁকি নিয়েই যানবাহন যাতায়াত করছে।
এলাকাবাসী জানান, এ সড়কটি গাজীপুরা, আউচপাড়া, হোসেন মার্কেট, হাজী মার্কেট, আলম মার্কেট, বনমালা ও এরশাদনগর এলাকার বাসিন্দাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মহাসড়ক থেকে অটোরিকশা উঠিয়ে দেওয়াতে সড়কটি ওইসব এলাকার জনগনের স্টেশন রোড হয়ে টঙ্গী বাজার, ঢাকা এবং শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে যোগাযোগের একমাত্র সহজ সড়ক এটি। এই সড়কে প্রতিদিন হাজার হাজার ছোট-বড় যানবাহন চলাচল করে। সড়ক নির্মাণে নিম্নমানের কাজ করাসহ এ সড়কে ব্যাপক যানবাহন চলাচলে কার্পেটিং, ইট, বালু ও খোয়া উঠে গিয়ে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ সড়কে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। সড়কের এ অবস্থার করণে মাঝেমধ্যে যানবাহন বিকল হয়ে পড়ে থাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে রোগী, সাধারন মানুষ ও যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়ছেন।
অটোরিকশা চালক শরিফুর ইসলাম জানান, চেরাগ আলী থেকে একজন রোগী নিয়ে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে উদ্যোশে যান। চেরাগআলী হয়ে থানা রোডে উঠার পরই যানজটে পরেন। ৫ থেকে ১০ মিনিটের পথ প্রায় এক ঘন্টার পর হাসপাতালে পৌছান তিনি। তিনি আরও বলেন, রাস্থায় পানি থাকলে বুঝা যায়না সড়কের কোথায় গর্ত আর কোথায় সমান। প্রায়ই এ সড়কে দুর্ঘটনা ঘটছে।
সড়কের গর্তে পড়ে বিকল হয়ে যাওয়া ট্রাক ড্রাইভার রমিজউদ্দিনের সাথে কথা বলে জানা যায়, মহাসড়কে যানজট থাকায় এই সড়কে ঢুকেন তিনি। সড়কের বৃষ্টির পানি থাকায় বুঝতে পারেননি কোথায় কোথায় গর্ত। সামনে পিছনে গাড়ি থাকায় প্রায় এক ঘন্টা গাড়ি নিয়ে আটকে ছিলেন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় গাড়ি গর্ত থেকে উদ্ধার করা হয়।
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৫৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবুল হাসেম জানান, এই সড়ক নতুন করে করার জন্য টেন্ডার হয়েছে। দ্রুত সড়কের কাজ ধরা হবে। তবে কাজ শুরু আগে গর্তগুলো ভরাত করে দেওয়া হবে যাতে জনগন ও যান চলাচলের সুবিধা হয়।

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*