Home / চলতি খবর / কুমিল্লা রেলওয়ে কলোনীতে সংস্কার কাজে সীমাহীন অনিয়ম

কুমিল্লা রেলওয়ে কলোনীতে সংস্কার কাজে সীমাহীন অনিয়ম

অর্ধকোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

মোহাম্মদ শাহ্ আলম শফি, কুমিল্লা :কুমিল্লা রেলওয়ে কলোনীর সরকারী কর্মচারীদের বসবাস করা কোয়াটার বা বাসাগুলোর সংস্কারে বিরাট অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এসংক্রান্তে চলতি অর্থ বছরে ১৬ টি বাসা সংস্কারের জন্য প্রায় কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেও নামমাত্র কাজ করে বেশীরভাগ অর্থ আতœসাতের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও ঠিকাদারের সাথে সমঝোতা করে সরকারী অফিস,রেলওয়ে অফিসার্স রেষ্ট হাউজের কাজও করেছেন নিজের পছন্দমত।
দায়িত্বশীল নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুত্র জানায়, চলতি অর্থ বছরে কুমিল্লা রেলওয়ে কলোনীর কর্মচারীদের বাসা সংস্কার ও মেরামতের জন্য রেলওয়ে থেকে প্রায় কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে এসব বাসাগুলোর ৩/৪ টি দরজা ও একই সংখ্যক জানালা পাতলা ষ্টিল শীট দিয়ে নির্মানসহ নামমাত্র সংস্কার ও রেডঅক্সাইড দিয়ে রং করে সংস্কার কাজ সম্পন্ন করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুত্র জানায়, রেলওয়ের সিগনাল গুদাম ঘর নম্বর ই/৮ নাম মাত্র কয়েকটি টিন পরিবর্তন করে খুঁটিনাটি ফ্লোর মেরামত ও গুদামের বহিরাংশের দেয়াল প্লাষ্টার করে অধিক কাজের নমুনা দেখিয়ে ১২/১৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দেখিয়ে প্রায় দু’লাখ টাকা খরচ করে। একইভাবে টি/২১ বাসাটি যা বর্তমানে সিগনাল অফিস হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে সেটার জন্য পাওয়া প্রাক্কলন ব্যয় ২১ লাখ টাকা থেকে ষ্টিলের ৮ টি দরজা ও ৮ টি জানালা সহ নামমাত্র সংস্কার ও রেডঅক্সাইড দিয়ে সংস্কার কাজ শেষ করে। এভাবে কলোনীর কর্মচারীদের বসবাসকরা টি/১০ নম্বরের ৮ ইউনিটের বাসাগুলোর সংস্কারে পাওয়া প্রায় ২০ লাখ টাকা থেকে ৩ টি করে ষ্টিলের দরজা ও জানালা বাবদ ৪/৫ লাখ টাকা ,ই/১৬ এস টাইপের ৬ টি বাসার ফ্লোর উচূঁকরণ ,ষ্টিলের দরজা-জানালা নির্মানের প্রায় ২১ লাখ টাকার বরাদ্দ থেকে ৩/৪ লাখ টাকা, ই/১৯ এস টাইপের ৬ ইউনিটের বাসার ৩ টি করে ষ্টিলের দরজা ও ৩ টি করে জানালা নির্মান ব্যয় প্রায় ২১ লাখ টাকা বরাদ্দের স্থলে ৩/৪ লাখ টাকা , ষ্টেশনের দক্ষিণে বর্তমান ষ্টেশন মাষ্টারের টি/১৯ বাসাটি সংস্কারের জন্য ৫ লাখ টাকা বরা্েদ্দর নামমাত্র ব্যয় করে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা আতœসাত হয়েছে। এদিকে কুমিল্লা রেলওয়ের সিনিয়র সাব এসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার (ওয়ার্কস) বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত এ-ইএন সরকারী বরাদ্দের টাকায় ঠিকাদারের সাথে গোপন সমঝোতা করে ভালো থাকার পরও সংস্কারের নামে কুমিল্লা রেলওয়ে অফিসার্স রেষ্ট হাউজ এর অনুকূলে প্রায় ১৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়। এসময় পুরাতন টাইলস্ রেখেই ছাদ চিপিং করে প্লাষ্টারসহ প্রলেপ দিয়ে দেয় সিমেন্টের। এছাড়া কুমিল্লা রেলওয়ের সিনিয়র সাব এসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার (ওয়ার্কস) অফিসটি সংস্কারের ১৬ লাখ টাকা বরাদ্দ থেকে নিজে নামমাত্র কাজ করিয়ে অধিকাংশ টাকা হাতিয়ে নেন। যা তদন্ত স্বাপেক্ষ প্রমান মিলবে। অনিয়ম ও নি¤œমানের কাজ করার বিষয়ে জানতে চাইলে এইএন (ভারপ্রাপ্ত) ও সিনিয়র সাব এসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার রাম নারায়ণ ধর বলেন, ঠিকাদারের বাইরে কাজ করার কোন সুযোগ নাই। এছাড়া তিনি আরো বলেন,চলতি অর্থ বছরে রেলওয়ের ১৬ টি বাসা সংস্কারে মাত্র ১৬ লাখ টাকা বরাদ্দ আসে। নাম মাত্র কাজ করে অর্থ আতœসাতের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।
০১৭১৭৫৩৫২০৮

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*