Home / চলতি খবর / দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে করোনাভাইরাস পরীক্ষার  পিসিআর মেশিন হস্তান্তর করলেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে করোনাভাইরাস পরীক্ষার  পিসিআর মেশিন হস্তান্তর করলেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

আতিউর রহমান : করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে পলিমার চেইন রি-এ্যাকশন (পিসিআর) মেশিন প্রদান করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) সকালে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ শিবেস সরকারের হাতে এই পিসিআর মেশিন হস্তান্তর করেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। এই মেশিন আভ্যন্তরিন করোনাভাইরাস শনাক্ত করার জন্য মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের তত্তাবধানে স্থাপন করা হবে। স্বর্র্দি, জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের জন্য পৃথকভাবে ফ্লু ফিভার ইউনিট করা হয়েছে। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব তত্তাবধান করবেন।

পিসিআর মেশিন হস্তান্তরের সময় হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি দিনাজপুরে দ্রুত পিসিআর মেশিন প্রেরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, আমি আমার জীবনকে জনগনের জন্য উৎস্বর্গ করেছি।  তিনি বলেন, বাংলাদেশ ওলি-আউলিয়ার দেশ। ইনশাল্লাহ আমরা অচিরেই করোনাভাইরাস মুক্ত হবো। করোনাভাইরাস প্রতিরোধের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃনমুল পর্যায়ে খোজ খবর রাখছেন এবং অফিস, আদালত, কল কারখানা, যানবাহন বন্ধ থাকার কারণে অনেক দিনমুজুর এবং মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। তিনি কর্মহীন মানুষের জন্য বিনামুল্যে খাবার ব্যবস্থা করতে সরকারি সাহায্য প্রদান করছেন। প্রশাসন ও দলের নেতাকর্মীদের অভুক্ত হতদরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এই দুর্যোগে মানুষের পাশে দাড়াবার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই এম আব্দুর রহিম রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সর্দি ও জ্বরের জন্য পৃথক ওয়ার্ড নির্ধারণ করা হয়েছে। চিকিৎসার জন্য কাউকে আর বাহরে যেতে হবে না। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এখন চিকিৎসা দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশের প্রতিটি হাসপাতালে পিসিআর মেশিন দেয়া হবে। তারই ধারাবাহিকতায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। দেশের প্রতিটি মানুষ যেন চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখার আহবান হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

পিসিআর মেশিন পাওয়ার পর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ শিবেস সরকার বলেন. আগামী ২/৩ দিনের মধ্যেই করোনাভাইরাস শনাক্তের কার্যক্রম শুরু হবে। দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ নির্মল চন্দ্র দাস বলেন, করোনাভাইরাস রোগীদের চিকিৎসা ও শনাক্তকরণের জন্য স্বার্বক্ষনিক ৩১ জন চিকিৎসক ও ৩০ জন নার্স প্রস্তুত রয়েছে।

এ সময় দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল কুদ্দুস, হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাঃ নাজমুল হক, কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ নাদির হোসেন, ডাঃ নুরুজ্জামানসহ কলেজ ও হাসপাতালের অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

 

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*