Home / চলতি খবর /  করোনা মুক্তকরণে ডাক্তার মেহেদীর ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা : নারায়ণগঞ্জের ৪ ম্যাজিস্ট্রেটসহ ২৪ জন সুস্থ্য 

 করোনা মুক্তকরণে ডাক্তার মেহেদীর ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা : নারায়ণগঞ্জের ৪ ম্যাজিস্ট্রেটসহ ২৪ জন সুস্থ্য 

দেলোয়ার হোসেন (নারায়ণগঞ্জ)  : ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমানের নির্দেশনায় প্রশাসন ক্যাডারকে করোনা মুক্ত করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিট্যাটিভ বিভাগের কর্মকর্তা তরুণ চিকিৎসক মেহেদি হাসানের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও টেলিমেডিসিনে দেয়া চিকিৎসা কার্যকরী হচ্ছে। এ পর্যন্ত তার পরামর্শে নারায়ণগঞ্জের ৪ ম্যাজিস্ট্রেটসহ ২৪ জন করোনা মুক্ত হয়েছেন।  সুস্থ্য হওয়াদের মধ্যে অধিকাংশ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও পুলিশ অফিসার শিক্ষকসহ জন সাধারণ।
এ প্রসঙ্গে ডাক্তার মেহেদী বলেন,মানবিক কারনে আমার চিকিৎসা সেবাকে প্রযুক্তিতে প্রসারিত করেছি। ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মহোদয় আমাকে প্রশাসন ক্যাডারের লোকজনকে সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। সাধারন লোকজনকেও সেবা দিচ্ছি। এ মহামারীতে নিজের সাধ্যমতো উজার করে দিচ্ছি। এ পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলার ৪ জন ম্যাজিস্ট্যস্ট ফারজানা আক্তার (৩৬ তম বিসিএস) আব্দুল মতিন( ৩৭ তম বিসিএস)তানিয়া তাবাস্সুম (৩৫ তম বিসিএস) ও তার পরিবারের ৪ জন, মারুফ( ৩৬তম বিসিএস), পুলিশ কর্মকর্তা সাকলাইন, মাসুদ, ভিকারুন্নেসা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যের পরিবারে ৬ জন, হবিগঞ্জের এডিসি উম্মে ইরশাদ,জামালপু্র সদরের এসিল্যান্ড মাহমুদা, গাইবান্দার ম্যাজিস্ট্যস্ট নুরশাদসহ ২৪ জন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হয়েছেন।
এ সময় তিনি আরো বলেন, করোনায় আক্রান্ত হলে মনোবল শক্তি দুটোই দরকার হয়।এতে ভেঙ্গে পড়া যাবেনা। মাথায় রাখতে হবে সঠিকভাবে নিয়ম মানলে এসব রোগী এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। রোগী ও রোগীর পরিবারকে সাহস সঞ্চার করতে হবে। সকলের মনোবল চাঙ্গা রাখেন। যুদ্ধে হাতিয়ারের চেয়ে বড় মনোবল।।
এ সময় করোনা চিকিৎসা বিষয়ে তিনি বলেন, করোনা থেকে বাঁচতে শরীরের ইম্যিউনিটি বাড়াতে হবে। যে কাজ গুলি নিয়মিত করলে শরীরের ইম্যিউনিটি বাড়ে তার মধ্যে পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে দিনে ৮ ঘন্টা প্রায়। বেশি করে ভিটামিন সি, শাকসবজি, বাদাম এবং এন্টিঅক্সিডেন্টযুক্ত খাবার খেতে হবে। স্বাস্থ্যসম্মত চর্বিযুক্ত খাবার যেমনঃ অলিভ অয়েল, ওমেগা৩ ফ্যাটি এসিড খেতে হবে।বেশি করে Fermented foods অথবা probiotic supplements সেবন।পরিমাণ মতো শর্করাযুক্ত খাবার খাওয়া। সহনীয় ব্যায়ামের মধ্যে নিজেকে অন্তর্ভুক করে স্ট্রেস লেভেল ম্যানেজ করা।
ভিটামিন সি, ভিটামিন ডি, জিংক, এলডারবেরি এবং রসুন সেবন সহায়ক। বার বার বলা হচ্ছে এ সময় “ভিটামিন সি” বেশি করে খেতে হবে ( কমলা,মাল্টা,লেবু) কালোজিরা, মধু খেতে হবে। প্রতিদিন সকালে গরম পানির ভাপ নিতে হবে ১০ মিনিট করে প্রতিদিন ৫-৬ বার। গলায় ব্যাথা থাকলে হালকা কুসুম গরম পানিতে লবণ দিয়ে গরগর কর‍তে হবে ৪-৫ বার। এখন রমজান মাস রমযানে নামাজ, কুরআন পাঠ, ইবাদত দুশ্চিন্তামুক্ত, নির্ভার থাকতে ও ইম্যুউন সিস্টেম সমৃদ্ধে কার্যকর।
এদিকে নারায়ণগঞ্জের ৪ জন ম্যাজিস্ট্র্যাট সুস্থ্য হওয়ার খবরে স্বস্থ্যি ফিরেছে প্রশাসনে। তবে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেন, যারা সুস্থ্য হয়েছেন তাদের ফুল উপহার দিয়ে বরণ করা হয়েছে।
করোনা আক্রান্ত প্রথম দুইজন শনাক্ত হয় নারায়ণগঞ্জে বসাবস করা মুন্সীগঞ্জের লোক ( ইটালি ফেরত দুজন প্রবাসী।আমি বিশ্বাস করি কেবিনেট সেক্রেটারি জনপ্রশাসন সচিব প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব ,বিভাগীয় কমিশনার ঢাকা ,আমার সহকর্মীদের এবং আমাকে যেভাবে এই দুর্যোগে উৎসাহিত করেছেন তার ফলেই করোনার পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হয়ে সুন্দরভাবে ফিরে আসতে পেরেছি। তবে একটা বিষয় বলতে চাই প্রথমে আমি আমার সহকর্মী হিসেবে তাহারা করোনা মোকাবেলার জন্য সামনে গিয়েছিল । এসব সহকর্মীরা আমার নির্দেশনা জন্য অপেক্ষা করেনি তারাও আমার পরবর্তীতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ।আর এগুলো করেছি নারায়ণগঞ্জবাসীকে ভালোবেসে ,প্রশাসনের অবস্থান সমুন্নত রাখার জন্যই
আমরা আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখব, করোনা থেকে বাংলাদেশ মুক্ত হবেই ইনশাল্লাহ।
এদিকে ডাক্তার মেহেদীর তত্বাবধানে সুস্থ্য হওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, বিভাগীয় কমিশনার মহোদয়ের নির্দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলের তরুন একজন চিকিৎসক মেহেদী হাসান। তিনি করোনা ভাইরাসের সময় প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা দিচ্ছেন। শুধু তাই নয় তার সেবায় বহুজন সুস্থ্য হচ্ছেন। আমাদের ম্যাজিস্ট্যস্টরাও সুস্থ্য হয়েছেন।
এ প্রসঙ্গে বিভাগী কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান মুঠোফোনে বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডাক্তার মেহেদী হাসান তার আন্তরিকতা দিয়ে করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের সেবা দিচ্ছেন। অনেকেই সুস্থ্য হয়েছেন। আমরা প্রশাসন ক্যাডারদের মধ্যে যারা সামনে কাজ করছেন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের মনোবল বাড়াতে পাশে রয়েছি। পাশাপাশি সাধারন মানুষের খোঁজ খবর রাখছি। এ পরিস্থিতিতে দেশবাসিকে অনুরোধ করবো এমন ছোঁয়াছে ভাইরাস সংক্রমণ না ঘটাতে। ঘরে থেকে লোকালয় এড়িয়ে চললেই তা সম্ভব।

 

 

About gssnews2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*