চট্টগ্রাম   শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০  

শিরোনাম

ধর্ষিতা জীবিত হয়েও যেন মৃত

জিএসএসনিউজ ডেস্ক :    |    ০৮:২৩ পিএম, ২০২০-০৯-০৮

ধর্ষিতা জীবিত হয়েও যেন মৃত

মোঃ সায়েদূল আলম  : আদিম যুগ অর্থাৎ যাকে আইয়ামে জাহেলিয়ার যুগ বা অন্ধকারাচ্ছন্ন যুগ বলা হতো । তখন সমাজে নারীরা লাচ্ঞিত ও অবহেলিত ছিল । কোন কন্যা সন্তান জন্মগ্রহন করলে তাকে জীবন্ত কবর দেওয়া হতো। সমাজে তাদের কোন কানাকড়ি মূল্য ছিল না । নারীদের ভোগের সামগ্রী হিসাবে ব্যবহার করা হতো। সেই আদিম যুগ থেকেই সমাজে নারী ধর্ষনের চিত্র লক্ষ করা যায় , যার প্রমান ইতিহাসে মেলে । তখন থেকে সভ্যতার এই যুগ পর্যন্ত এমন কোন সমাজ বা রাষ্ট্র নাই যেখানে ধর্ষন ক্রিয়া সম্পন্ন হয় নাই। কোন না কোন সময় কোন না কোন নারী ধর্ষনের স্বীকার হয়েছে । তবে রাষ্ট্র ও সমাজ ভেদে কম বেশী তারতম্য লক্ষনীয়। ধর্ষন হলো কোন নারীকে তার ইচ্ছার বাহিরে কোন পুরুষ জোর পূর্বক যৌনক্রিয়া সম্পন্ন করতে বাধ্য করে। অন্যভাবে বলা যায় কোন পুরুষ, কোন নারীকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক দৈহিক মিলনে বাধ্য করে বা দৈহিক মিলন ঘটিয়ে থাকে । ধর্ষন ক্রিয়া একজন নারীর সাথে একজন পুরুষের হতে পারে। আবার একজন নারীর সাথে একাধিক পুরুষের হতে পারে ও দল ভিত্তিক হতে পারে অর্থাৎ একাধিক নারীর সাথে একাধিক পুরুষের হতে পারে । ধর্ষন কোন রাষ্ট্র সমাজ ও ধর্মীয় নৈতিকতা স্বীকৃতি ও সমর্থন করে না । এটা সমাজ স্বীকৃত নিঃসন্দেহে ব্যবিচার ও জঘন্ন পাপের সামিল । যে ধর্ষন করে অর্থাৎ ধর্ষক আমাদের সমাজে ইসলাম ধর্ম মতে ব্যাবিচারী ও সর্ব নিকৃষ্ট পাপী বলে আখ্যায়িত । বেশীর ভাগ সময় জুয়াড়ু , মাদক সেবনকারী মাতালরা অর্থাৎ নিশাগ্রস্থরা নারী ধর্ষন করে থাকে । বয়স বৃদ্ধির সাথে মানুষের জৈবিক প্রেষনা বৃদ্ধি পেতে থাকে। আর এই বৃদ্ধির সাথে সঙ্গতি রেখে যথা সময়ে বিবাহ না হলে এবং যৌনক্রিয়া সম্পন্ন করতে না পারলে তাদের মাথায় ধর্ষনের মত খারাপ চিন্তা চেতনা প্রবেশ করতে থাকে । ফলে সমাজে ধর্ষনের মাত্রা বেড়ে যেতে থাকে । বলা যায় অবিবাহিত পুরুষদের দ্বারা বেশী ধর্ষন ক্রিয়া সম্পন্ন হয় । ইহাছাড়া বিবাহিত পুরুষদের দ্বারা ধর্ষন ক্রিয়া যে একেবারে সম্পন্ন হয় না সেটা ঢালাও ভাবে বলা যায় না । কোন কোন সময় বিবাহিত পুরুষদের দ্বারাও নারী ধর্ষন হতে দেখা যায়। সমসাময়িককালে তনু, নুসরাত ও তাকমিন সহ অনেকেই ধর্ষনের স্বীকার হয়ে মৃত্যুবরন করেছে । এরা বিভিন্ন শ্রেনী পেশার পুরুষদের দ্বারা ধর্ষনের স্বীকার হয়েছে যা আমরা বিভিন্ন পত্র পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলের সংবাদ এর মাধ্যমে জানতে পেরেছি । যে পুরুষ কোন নারীকে তার ইচ্ছার বাহিরে জোর পূর্বক যৌনক্রিয়া সম্পন্ন করতে বাধ্য করে তখন সেই পুরুষকে ধর্ষক বলা হয় । অন্যভাবে বলা যায় যে পুরুষ কোন নারীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সাথে জোর পূর্বক দৈহিক মিলন ঘটায় সেই পুরুষকে ধর্ষক বলা হয় । ধর্ষক ব্যাবচারী , পাপিষ্ট ও জঘন্য অপরাধী। সে যেই হোক না কেন ইসলাম ধর্ম মতে তার পাপ মোচন হবার নয় । সে সর্বশ্রেষ্ঠ ঘৃনিত ও নিন্দিত ব্যাক্তি । ইসলাম ধর্ম মতে ধর্ষক বিবাহিত হলে তাকে পাথর ছুড়ে মেরে হত্যা করতে হবে । আর অবিবাহিত হলে একশত ( ১০০ ) ডোররা বেত্রাঘাত করতে হবে । ইসলাম ধর্মের প্রবর্তক হযরত মুহাম্মদ ( সঃ ) বিদায় হজ্জে আরাফাতের ময়দানে ভাষনের মাধ্যমে নারী ও পুরুষের সম অধিকার নিশ্চিত করে গেছেন । সেই সময় থেকে এ পর্যন্ত নারীদের অধিকার ও স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার জন্য বিভিন্ন রাষ্ট্র নানাবিধ আইন প্রনয়ন করে তা বাস্তবায়নের প্রতি দৃষ্টি নিবন্ধন করেছে। বাংলাদেশ সংবিধানের ২৮ এর ( ১ ) ২৮ এর ( ২ ) ২৮ এর ( ৩ ) ২৮ এর ( ৪ ) ২৯ এর ( ১ ) ২৯ এর ( ২ ) ও ৬৫ এর ( ৩ ) অনুচ্ছেদর মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় ও গনজীবনের সকল স্তরে নারী পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে । কিন্তু তার কার্যকারিতা কতটুকু হয়েছে বা হচ্ছে সেটা বিবেচ্য বিষয় । বর্তমানে নারীরা প্রশাসন সহ নানাবিধ সরকারী বেসরকারী স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, ব্যাংক, বীমা ও বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত আছে । এর পরও নারীরা কতটুকু স্বাধীন বা স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারে তা একমাত্র নারীরাই বলতে পারবে। এতকিছুর পরও বর্তমান সমাজে শহর ও গ্রামের নারীরা মাঝে মধ্যে যে লাচ্ঞিত ও নির্যাতিত হচ্ছে তার চিত্র বিভিন্নভাবে টিভি ও পত্র পত্রিকার মাধ্যমে আমরা দেখে থাকি । জানিনা সভ্যতা আর কতদুর পৌচ্ছালে নারীরা নিরাপদে ও স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারবে।যখন কোন নারী তার ইচ্ছা বা সন্মতির বাহিরে কোন পুরুষ কর্তৃক জোর পূর্বক যৌনক্রিয়ার স্বীকার হয় তখন সেই নারীকে ধর্ষিতা বলা হয়। বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেকই নারী। সকল কর্মকান্ডে নারী ও পুরুষ উভয়ের অংশগ্রহন ছাড়া দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি সম্ভব নয় । যেখানে সকল কর্মকান্ডে নারীদের অগ্রনী ভুমিকার প্রয়োজন সেখানে ধর্ষন ক্রিয়ার মত বর্বরতা নারী তথা সমগ্র দেশকেই অনেক সময় স্তম্ভিত করে দেয় । অনুমান করা যায় বেশীর ভাগ ধর্ষকই বিত্তবান । ধর্ষকদের অধিকাংশই সমাজের প্রভাবশালী ও ক্ষমতাসীনদের আশ্রয় প্রশ্রয়ে আইনের ফাকর ফোকর দিয়ে পার পেয়ে যায় । সঠিক বিচার ও অপরাধ অনুযায়ী শাস্তি না হওয়ায় অনেক সময় মনে হয় ধর্ষকদের হাত আইনের চেয়েও লম্বা বা বড় । শুধুমাত্র ধর্ষক বাদে দেশের ও সমাজের সকল মানুষই চাই ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে যাতে করে সমাজ থেকে ধর্ষনের মত অনাচার ও ব্যবিচার চিরতরে বন্ধ হয়ে যায় । শিশু থেকে বৃদ্ধ নারী সকলেই যেন নিরাপদে ও স্বাধীনভাবে দিন রাত চলাফেরা করতে পারে। ধর্ষিতা জিবীত থেকেও মৃত (ক) ধর্ষিতাসহ ধর্ষিতার পরিবারের সকলের হাসি খুশি নষ্ট হয়ে যায়।(খ ) অনেক ধর্ষিতার পরিবারে অর্থনৈতিক উন্নয়নে স্থবিরতা এসে যায়, (গ ) ধর্ষিতা নিজেকে কলংকিত মনে করে বাকি জীবন মনকষ্টের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করতে থাকে, (ঘ ) ধর্ষিতা নিজেকে ঘৃনিত ও অসহায় মনে করে থাকে, (ঙ ) ধর্ষিতা সবসময় নিরানন্দময় জীবন ও একা একা থাকতে পচ্ছন্দ কওে, (চ ) এদের মধ্যে কর্ম বিমুখীতা দেখা দেয়, (ছ ) এদের সহজে বিবাহ হয় না । আর হলেও দানপত্য জীবন তেমন শুখের হয় না, (জ) ধর্ষিতা বিবাহিত নারী হলে তার পরিবার থেকে নানাবিধ অসুবিধা ভোগ করা সহ বাজে আচরনমুলক কথাবার্তা শুনতে হয় । অনেক সময় অনেকের দানপত্য জীবনের সমাপ্তি ও ঘটে থাকে, (ঝ) এরা বিষন্নতায় ভোগে, অনেক সময় এরা আত্মহত্যার পথ বেঁছে নেয় এবং অনেককে আত্মহত্যা সম্পন্ন করতেও দেখা যায়, (ঞ ) হতাশা , নিরাশা ও বিষন্নতার কারনে এরা অনেক সময় অসুস্থ্য হয়ে মানষিক রুগীতে পরিনত হয়, (ট ) এরা নিরব ও একাকী থাকতে পচ্ছন্দ করে । এগুলো ছাড়াও আরও কম বেশী কারন থাকতে পারে । তবে বলা যায় পৃথিবীটা তার কাছে অন্ধকারাচ্ছন্ন মনে হয় এবং তার চাওয়া পাওয়ার বিপরীত হয়ে যায় । একমাত্র মৃত্যুই তার চাওয়া পাওয়ার প্রধান হয়ে দাড়ায়।তাই বলা যায় ধর্ষিতা জীবিত থেকেও মৃত। শুধু পারিবারিক ও সামাজিক ভাবেই নয় রাষ্ট্রীয়ভাবে ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে ধর্ষিতাকে পুনঃবাসনের ব্যবস্থা করে কোন না কোন কাজের মধ্যে রাখতে হবে । যাতে করে ধর্ষিতা ধর্ষিত হবার আগে যে স্বাভাবিক জীবন যাপন করতো ঠিক তেমনী হাসি খুশি ভাবে চলা ফেরা ও কর্মকান্ডের মধ্য থেকে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে ।

রিটেলেড নিউজ

ফরিদপুর চর মাধবদিয়া ইউনাইটেড উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে স্কুলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

ফরিদপুর চর মাধবদিয়া ইউনাইটেড উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে স্কুলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : এম.এ.মুঈদ হোসেন (আরিফ) : ১৯৭০ সালে স্থাপিত ফরিদপুরের চর মাধবদিয়ার স্বনামধন্য ইউনাইটেড উচ্চ বিদ্যাল...বিস্তারিত


আখাউড়ায় যৌতুকের টাকার জন্য গৃহবধূ নির্যাতন : নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা

আখাউড়ায় যৌতুকের টাকার জন্য গৃহবধূ নির্যাতন : নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : ইসমাইল হোসেন (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) :  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় যৌতুকের টাকার জন্য গৃহবধূকে নির্যাত...বিস্তারিত


প্রথম আলোর আনিসুল হকসহ ৫ জনের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

প্রথম আলোর আনিসুল হকসহ ৫ জনের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের শিক্ষার্থী নাইমুল আবরার রাহাতের মৃত্যুর ঘটনায় দ...বিস্তারিত


টঙ্গী প্রেসক্লাবের উদ্যোগে পুলিশ কমিশনারকে বিদায়ী সংবর্ধনা

টঙ্গী প্রেসক্লাবের উদ্যোগে পুলিশ কমিশনারকে বিদায়ী সংবর্ধনা

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : আব্দুস সবুর খান, টঙ্গী : গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ আনোয়ার হোসেন বিপিএম বার, পিপিএম বার-...বিস্তারিত


২১ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়ে পার্থে হারল ভারত

২১ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়ে পার্থে হারল ভারত

নিজস্ব প্রতিবেদক : ...বিস্তারিত


‘বাকিদের জিজ্ঞেস করুন, সবার উত্তর তো দিতে পারব না’

‘বাকিদের জিজ্ঞেস করুন, সবার উত্তর তো দিতে পারব না’

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামরার চার্জ গঠন শুনান...বিস্তারিত



সর্বপঠিত খবর

অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল খোশনবীশের দুরদর্শীতায় মীরপুর বাংলা স্কুল এ্যান্ড কলেজের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্মাননা লাভ

অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল খোশনবীশের দুরদর্শীতায় মীরপুর বাংলা স্কুল এ্যান্ড কলেজের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্মাননা লাভ

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : আসাদুজ্জামান বাবুল : গ্রীক বীর 'আলেক্সান্ডার দ্য গ্রেট' ভারতীয় উপমহাদেশে পদার্পণ করেই এখনকার প...বিস্তারিত


কুমিল্লার মুরাদনগরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলের ঘর দেয়ার প্রলোভনে গৃহবধূকে ধর্ষণ 

কুমিল্লার মুরাদনগরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলের ঘর দেয়ার প্রলোভনে গৃহবধূকে ধর্ষণ 

জিএসএসনিউজ ডেস্ক : : বেলাল উদ্দিন আহাম্মদ, মুরাদনগর(কুমিল্লা) : কুমিল্লার মুরাদনগরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলের ঘর ...বিস্তারিত



সর্বশেষ খবর