চট্টগ্রাম   শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১  

শিরোনাম

মানব সেবায় নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারের বিরল দৃষ্টান্ত 

জিএসএসনিউজ ডেস্ক :    |    ০৬:১১ পিএম, ২০২০-১০-০৭

মানব সেবায় নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারের বিরল দৃষ্টান্ত 

আসাদুজ্জামান বাদল, নরসিংদী প্রতিনিধি নরসিংদীর পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় কুমার জোয়ারদার বিপিএম (বার) পিপিএমকেদৈনিক শিরোমণিপরিবারের পক্ষ থেকে অভিনন্দন।

মানবিক পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় কুমার জোয়ারদার গত ২০১৯ সালের ২৮ জুলাই নরসিংদী পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এরপর থেকে জেলার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি অপরাধ নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি নরসিংদী জেলায় করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শতভাগ লকডাউন কার্যকর করেন। এমনকি করোনার প্রার্দুভাবের জন্য খেঁটে খাওয়া কর্মজীবি মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে; বিষয়টি অনুধাবনের পর তিনি নিজ উদ্যোগে লকডাউন বিদ্যমান থাকাকালীন সময়ে ১০ হাজারের বেশী কর্মহীন গরীব মানুষের বাড়ীতে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেন।

এছাড়া জেলায় করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারের নেতৃত্বে পুলিশ অত্যন্ত পেশাদারীত্বের সাথে শতভাগ আন্তরিকতার মাধ্যমে লকডাউন কর্মসূচি পরিচালন, বিদেশ অন্যান্য জেলা শহর থেকে আগত মানুষকে হোমকোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত, জনগণকে সচেতন করতে স্বাস্থ্যবিধি সম্বলিত হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ, বেশ কয়েকবার মাইকিং, করোনা সংক্রমণ হওয়ার পদ্ধতি প্রতিরোধ বিষয়ে ফেস্টুন, ব্যানার প্রদর্শণ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা নির্দেশনা হ্যান্ডবিল আকারে প্রচার, অসচেতন কর্মজীবি জনসাধারণের মধ্যে ফ্রি ১০ হাজার মাস্ক বিতরণ, পুলিশ সদস্যদের মনোবল বৃদ্ধি শরীরে এন্ট্রিবডি তৈরী করতে পুষ্টিকর খাদ্য ঔষধ প্রদান, সরকার ঘোষিত রেড জোন এলাকায় প্রবেশ বাহির পথে লকডাউন এবং উক্ত এলাকার ম্যাপ ব্যানার প্রদর্শন, করোনা উপর্সগ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী মানুষের দাফনে সরাসরি সহায়তা আইন-শৃংঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণসহ পরিস্থিতি বিবেচনায় বহুমুখী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। যার প্রেক্ষিতে নরসিংদী জেলায় মহামারী করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত মাদক নির্মূলে চলমান অভিযান পরিচালনায় মাদক উদ্ধার সংক্রান্ত মামলার ঘটনায় মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করা হয় এসপি প্রলয় কুমার জোয়ারদারের নির্দেশে। এছাড়া ইয়াবা, গাঁজা গাঁজার গাছ, প্যাথেডিন, বাংলা মদ, চোলাই মদ, দেশি-বিদেশি মদ, ফেন্সিডিল, হিরোইনসহ বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

মহামারী করোনা প্রতিরোধের যুদ্ধে শুরু থেকেই নরসিংদীতে মাঠ পর্যায়ে পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার বিপিএম (বার) পিপিএম এর দিকনির্দেশনায় জেলা পুলিশের সদস্যরাঅগ্র সেনানী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। লক ডাউনের পর বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে গণপরিবহনে যাত্রী সেবা তদারকি অব্যাহত রেখেছে নরসিংদী জেলা পুলিশ।

আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণসহ, সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ থেকে শুরু করে লকডাউন, করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী ব্যাক্তির লাশ নিশ্চিতে দাফন, নিরাপদ সৎকার কাজের সরঞ্জামাদি বিতরণ করা হয়। একই সাথে চালাচ্ছেন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করণ ক্যাম্পেইন। বলা যায়, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন রাজনীতিবিদদের সাথে পাল্লা দিয়েই বিভিন্নমুখী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে জেলা পুলিশের সদস্যরা। নির্ভীক পুলিশ সদস্যরা মাথায় গামছা বেধে কেটেছেন অসহায় কৃষকের জমির পাকা ধান। বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিতরণ করছেন ত্রাণ সামগ্রী। এখনও ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। হট লাইনে ফোন দিলেই মধ্যবিত্ত নিন্ম মধ্যবিত্ত অভুক্ত মানুষের ঘরে পৌছে দিচ্ছেন খাদ্য সামগ্রী। রমজান মাসে এতিম, প্রতিবন্ধী, ভাসমান ছিন্নমূল অনাহারী মানুষের মধ্যে বিতরণ করেছেন ইফতার। স্বাস্থ্য সেবা মানুষের দৌরগোড়ায় পৌঁছে দিতে পুলিশের ভ্রাম্যমাণ ফ্রি মেডিক্যাল টিম চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ডাক্তারদের সাথে নিয়ে তৈরী ভ্রাম্যমান টিম অ্যাম্বুলেন্সসহ গাড়ী বহর স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন এলাকা থেকে এলাকায়।

সম্প্রতি মানুষকে ঘরে রাখতে জেলা পুলিশের উদ্যোগে সুলভ মূল্যে দৈনন্দিন বাজার সরবরাহ কার্যক্রমের উদ্ধোধন করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, করোনার ছোবল থেকে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের রক্ষা করতে পুলিশ লাইন্স পুলিশ সুপার কার্যালয়ে জীবাণুনাশক ট্যানেল বসানো হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে একাধিক মৃত ব্যক্তির লাশ দাফনে এলাকাবাসী ভয় পেলেও পুলিশ সদস্যরা স্বমহিমায় এসব লাশের দাফন সম্পন্ন করছেন।

করোনার দুর্যোগ মোকাবেলায় মানুষকে সর্বাধিক সেবা প্রদান করে আলোচনায় এখন জেলা পুলিশ। তাই সাধারণ মানুষের মুখে মুখে এখন জেলা পুলিশের ভূয়সী প্রশংসা। সর্বশেষ লকডাউন নিশ্চিতে জেলা পুলিশের কর্মকান্ড