চট্টগ্রাম   শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১  

শিরোনাম

উল্লাপাড়ার কয়ড়া ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পে হরিলুট

জিএসএসনিউজ ডেস্ক :    |    ০১:৫০ পিএম, ২০২০-১২-২৬

উল্লাপাড়ার কয়ড়া ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পে হরিলুট

এনামুল হক, সিরাজগঞ্জ থেকেঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার কয়ড়া ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়ম অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। আর অনিয়মের সঙ্গে সরাসরি জড়িয়ে পড়েছে ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বার কতিপয় কর্মকর্তারা। কর্মহীন শ্রমজীবিদের জন্য কাজের সুযোগ তৈরির লক্ষ্যে ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্প চালু করেছে সরকার। তবে বঞ্চিত অসহায়দের তালিকায় প্রভাবশালী (ভিআইপি শ্রমিক) ভূয়া নাম অন্তর্ভুক্ত করারও অভিযোগ উঠেছে।উপজেলা ত্রাণ পুনর্বাসন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মাঠে কাজ না থাকায় কর্মহীন প্রান্তিক শ্রমজীবি মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ৪০ দিনের জন্য কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। এতে সপ্তাহে পাঁচদিন সরকারী ভাবে গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্পে মাটি কাটার কথা। যা গত ২০১৯-২০ অর্থ বছরের মার্চে শুরু হলেও কিছুদিন কাজ করার পর করোনা প্রভাবে প্রকল্পটি বন্ধ হয়ে যায়। তবে প্রকল্প টির বাকি কাজ নভেম্বর মাসেই শেষ হয়। উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়নে মোট ৪২ টি প্রকল্পের আওতায় হাজার ৩৯৪ জন তালিকাভুক্ত শ্রমিকের অনুকুলে কোটি ৭১ লক্ষ ৫২ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়েছে। ৪০ দিন কাজের বিনিময়ে প্রত্যেক শ্রমিক হাজার টাকা করে পারিশ্রমিক পাওয়ার কথা। প্রকল্প চলাকালীন (৩০ নভেম্বরের আগে) সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কয়ড়া ইউনিয়নের রশিদ মেম্বারের বাড়ি থেকে জয়নব মেম্বারের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণে ৭৫ জন শ্রমিকের জন্য লক্ষ টাকা বরাদ্দ আসে। এই রাস্তায় ৭৫ জন শ্রমিকের জায়গায় ১৮ জন শ্রমিককে কাজ করতে দেখা গেছে। এখানে দায়িত্বে থাকা জয়নব মেম্বার জানান এই প্রকল্পে শুরু থেকে ১৮ জন কাজ করছে, বাকি গুলো ভিআইপি। ইউপি সদস্য জয়নবের কাছে কাছে ভিআইপি শ্রমিক কারা জানতে চাইলে তিনি জানান বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ভালো বলতে পারবে।অন্য একটি প্রকল্পে কয়ড়া হোরপাড়া মসজিদ থেকে পূর্বপাড়া পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণে লক্ষ টাকা বরাদ্দ হয়। এখানে ৭৫ জন শ্রমিকের কাজ করার কথা থাকলেও একজনেও ওখানে পাওয়া যায়নি। এই এলাকার