চট্টগ্রাম   শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২  

শিরোনাম

লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে ২২ দিন মাছ ধরা নিষিদ্ধ

জিএসএসনিউজ ডেস্ক :    |    ০৫:১৮ পিএম, ২০২০-১০-১২

লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে ২২ দিন মাছ ধরা নিষিদ্ধ

রিয়াজ মাহমুদ বিনু: রুপালী ইলিশের ভরা প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় মেঘনা নদীর চাঁদপুরের ষাটনল থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতির চর আলেকজান্ডার পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার এলাকাকে অভয়াশ্রম হিসেবে ঘোষণা করে ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর এ ২২ দিন সকল ধরনের মাৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছে সরকার।

রামগতি উপজেলা মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মেঘনা নদীতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে এরকম এফআইডি কার্ডধারী জেলে রয়েছেন ১৮৮৬০ জন আর নিবন্ধীত জেলে রয়েছেন প্রায় ২০৩৬০ জন। প্রতিবছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে, জাটকা ইলিশ রক্ষাসহ কয়েকটি সময়ে নদীতে মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকে। এ সময় মাছ ধরা থেকে বিরত থাকা জেলেদেরকে সরকার ভিজিএফ খাদ্য সহায়তা প্রদান করে থাকে। ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার এ ২২ দিন নদীতে সকল ধরণের মাৎস্য আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বিক্রয় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করে। এ আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে রয়েছে জেল জরিমানাসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন জানান, প্রতি বছরের মত এবারো মা ইলিশ রক্ষায় ২২ দিন সকল ধরনের মাৎস্য আহরণ, বিপনন, মজুদ, পরিবহন নিষিদ্ধ থাকবে। উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য বিভাগ, কোষ্টগার্ড, নৌ-পুলিশসহ যৌথ অভিযান পরিচালনার সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করেছি। জেলেদের মাঝে সচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে।
রামগতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল মোমিন বলেন, সরকার দেশের ঐতিহ্যবাহী রুপালী ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি, মাৎস্য সম্পদ সুরক্ষায় প্রতি বছর ইলিশের ভরা প্রজনন মৌসুমে নদীতে নির্দিষ্ট সময় সকল ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করে। এ সময় অলস জেলেদের জন্য রয়েছে ভিজিএফ, বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টি সহ নানান সুযোগ সুবিধা। দেশের সম্পদ সুরক্ষার স্বার্থে সবাইকে এ আইন মানতে হবে। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে রয়েছে জেল জরিমানা।